December 20, 2009

2012: Believing or Fake

গতকাল দেখলাম ২০১২ মুভিটা, অনেক মজাই লাগলো। কিন্তু তারপর শুরু করলাম পড়া, আসল সত্যটা বাহির করার জন্য। কাল্পনিক হতেও পারে, আবার নাও হতে পারে। নতুন যুগ শুরু হবার সময় এটা। প্রথমে মেসোয়ামেরিকার মায়ানরা এই চিন্তাধারা তাদের শিক্ষাতে যোগ করে। কিন্তু যদি আমরা মায়ানদের কথা বাদ দেই, তবুও কিন্তু বিজ্ঞান এটাকে যুক্তিযুক্ত হিসেবে ধরে নেয়।
১৯০০-এর মধ্যে, জন মেজর জেনকিনস্‌ মনে করে
ন যে পৃথিবীর ইতি ঘটবে ২০১২ সালে। কারণ তিনি বলেন আমাদের গ্রহ ও সূর্‍্য একই সমতলে আছে, যার কারণে রাশির নক্ষত্রগুলো আমাদের একই সমতলে চলে। সেগুলো যায় ঘড়ির উল্টোদিকে, এক ডিগ্রি প্রতি ৭২ বছরে। এটার কারণে একটি হালকা কাপানি ছটে পৃথিবীর জন্য। তার জন্য প্রতি ২১৬০ বছরে বসন্তের ইকুইঙ্কস পরিবর্তন হয়। পশ্চিমাবিশ্বের অনু্যায়ী এটা নির্ধারণ করে যে একটি যুগ শেষ হলো রাশি অনু্যায়ী।
গ্রেইট রিফট, যার অনু্যায়ী মায়ানরা তাদের তত্ত্বতে এসেছে হচ্ছে এলিপ্টিক। তাদের তথ্য অনু্যায়ী, সূর্য সরাসরি গ্রেইট রিফট-এর সাথে একই সমতলে যাবে এই সময়ে।
আমার মতে, এই ধরনের তত্ত্বের অনেককিছুই সত্য নয়, যেমন মায়ানরা হুনাব কু আবিস্কার করেনি যেটা হিস্টোরি চ্যানেল বলেছে। এটা এষ্টেকদের একটি আবিস্কার, কিন্তু যদিও আমি মায়ানদের সাথে একমত নই, আমি বিজ্ঞানে বিশ্বাস করে এটাই বলতে পারি, যে এই প্রকার গ্যালাক্টিক এলাইনমেন্ট সম্ভব এবং এই প্রকার কিছু তৈরী হলে সেটা আমাদের জন্য কোনো সুবিধার হবে না। বরংচ এই প্রকার আমাদের ক্ষতিই করবে, কারণ সূর্যের মেগনেটিক টানে মেরু পরিবর্তন করতে পারে। যদি এই প্রকার পরিবর্তন হয়, উত্তর মেরু (যেটা আমরা এখন উত্তর মেরু বলি) সেটা বিশুবরেখার কাছে চলে যাবে।

Picture From:
2012eyeoftheshaman.com
Technorati Tags: , ,





No comments:

Post a Comment